ফিফা বিশ্বকাপ-২০১৮ (রাশিয়া)

শুরু হতে চলেছে ফিফা বিশ্বকাপ-২০১৮। আয়োজক দেশ রাশিয়া। ৩২ জাতির অংশগ্রহণে বিশ্বজয়ের এই মহা লড়াই শুরু হবে ১৪ জুন থেকে । প্রথমবারের মত রাশিয়ার মাথায় শোভা পেতে যাচ্ছে ফিফা বিশ্বকাপ আয়োজক এর মুকুট । শুধু তাই নয় তাবৎ পূর্ব ইউরোপে প্রথমবারের মত হতে চলেছে ফুটবলের সবচেয়ে বড় এই মহা আয়োজন । আর রাশিয়া হতে চলেছে ইতিহাসের সাক্ষী এবং একইসাথে, একই আসরে দুই মহাদেশে (এশিয়া ও ইউরোপ) খেলা আয়োজনের বিরল ইতিহাসও গড়তে চলেছে রাশিয়া। রাশিয়ার ১১ টি শহরের মোট ১২ টি স্টেডিয়ামে এই আসর চলবে ১৪ জুন থেকে ১৫ জুলাই পর্যন্ত ।

একটু পেছনের দিকে যাওয়া যাক, ২০০৯ সালে ফিফা ২০১৮ এবং ২০২২ সালের আয়োজনে ইচ্ছুক দেশগুলোর আবেদন আহবান করে এবং প্রাথমিক ভাবে কয়েকটি দেশের আবেদন গ্রহণ করে। এই তালিকায় অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড,ইন্দোনেশিয়া,মেক্সিকো,রাশিয়া,জাপান,পর্তুগাল, স্পেন,বেলজিয়াম ও নেদারল্যান্ড, আমেরিকা -২০১৮ সালের জন্য এবং শুধুমাত্র কোরিয়ান রিপাবলিক ও কাতার ২০২২ সালের জন্য মনোনীত হয় । বিভিন্নরকম অভ্যন্তরীণ বাছাই শেষে ২ ডিসেম্বর, ২০১০ সালে সুইজারল্যান্ডের জুরিখে রাশিয়াকে ২০১৮ সালের ফিফা বিশ্বকাপের আয়োজক হিসেবে ঘোষণা দেওয়া হয়। এবং তখন থেকেই রাশিয়া সারা পৃথিবীর ফুটবলপ্রেমী দর্শকদের অপ্যায়নের প্রস্তুতি গ্রহণ করতে শুরু করে ।

 

       

          শহর ও স্টেডিয়াম সমূহ এবং তাদের দর্শক ধারণ ক্ষমতা :
২৯ সেপ্টেম্বর ২০১২ তে রাশিয়ার মোট ১১ টি শহরের নাম ঘোষণা করা হয় হোস্ট হিসেবে। এর মধ্যে ছিল ;
মস্কো (লুঝনিকি-৮১০০০. স্পারতাক-৪৫৩৬০),
কালিনিনগ্রাদ (কালিনিনগ্রাদ-৩৫০১৫),
সেইন্ট পিটারসবারগ (৬৭৮০০),
ভলগাগ্রাদ (ভলগাগ্রাদ-৪৫০১৫),
কাজান (কাজান আরেনা-৪৫০০০),
সামারা (সামারা আরেনা-৪৪৯১৮),
সারান্সক(মরদোভিয়া আরেনা৪৫৩৬০)
রস্তভ অন ডন(৪৫০০০),
সোচি(ফিস্ত-৪৪০০০) এবং
একাতেরিনবুরগ(একাতেরিনবুরগ আরেনা-৩৫০০০)।

রাশিয়ান সংস্কৃতি ও আভিজাত্যের সংমিশ্রণে জমকালো উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই মহাআসরের সূচনা হবে ১৪ জুন মস্কোর লুঝনিকি স্টেডিয়ামে। প্রথমবারের মত এবারের বিশ্বকাপে থাকছে ‘ভিডিও রিপ্লে সিস্টেম’ । যার সাহায্যে রেফারীগণ সহজেই নির্ভুল সিদ্ধান্তে উপনীত হতে পারবেন । মস্কো ও পিটারসবারগে থাকবে মুসলিম দের নামাজের ব্যবস্থা,হালাল রেস্তোরাঁ ।

মোহাম্মাদ রাশেদুল ইসলাম
ভরোনেঝ স্টেইট মেডিকেল ইউনিভার্সিটি
রাশিয়া
Dobrimir.org